সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৫:৫৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ট্রাফিক আইন ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: পুলিশ সুপার মো. ফয়েজ আহমেদ আম নিতে চায় রাশিয়া-চীন রাজশাহীতে গ্রামীণ ব্যাংকের মতবিনিময় বকেয়া ভূমি উন্নয়ন কর ৪৪৮ কোটি টাকা রাজশাহীতে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সম্মেলন রাজশাহী মহানগরীতে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ‘নো হেলমেট, নো ফুয়েল’ পাম্পগুলোতে ডিউটি পুলিশের রহনপুর রেলওয়ে শুল্ক স্টেশনের স্বার্থে সবাইকে এক হয়ে কাজ করতে হবে : জিয়াউর রহমান এমপি শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন : ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার প্রত্যয় জেলা নেতৃবৃন্দের চাঁপাইনবাবগঞ্জেলিয়াকত হোসেন স্মরণে আলোচনা সততা সংঘের অসচ্ছল ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি দিচ্ছে দুদক

এক যুগ পর সুরমা-কুশিয়ারায় মিলবে পানি!

সবিতাব্রত রায়(তারক)
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৯ আগস্ট, ২০২২
  • ৩৮৯ বার পঠিত
এক যুগ পর সুরমা-কুশিয়ারায় মিলবে পানি!
ফাইল ফটো

সবিতাব্রত রায়(তারক) কলকাতা থেকে : এক যুগ পর আগামী ২৫ আগস্ট দিল্লিতে বসছে যৌথ নদী কমিশনের (জেআরসি) মন্ত্রীপর্যায়ের বৈঠক। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আসন্ন ভারত সফরের ঠিক আগে জেআরসির এই বৈঠককে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ হিসেবে দেখা হচ্ছে। ঐতিহাসিক গঙ্গা চুক্তির পুনঃনবায়ন এবং সুরমা-কুশিয়ারা নদীর পানি ভাগাভাগি নিয়ে এই বৈঠকে খুব ইতিবাচক সিদ্ধান্ত আসতে চলেছে। পাশাপাশি আলোচনায় তিস্তা চুক্তির বিষয়ে অগ্রগতি চায় বাংলাদেশ।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবুল মোমেন বলেছেন, ‘যৌথ নদী কমিশনের (জেআরসি) বৈঠকে ছয় নদীর বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। আমরা দেশের সব নৌপথ আগের মতো সচল করতে চাই। সেই বিষয়টি নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হবে।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, সিলেটের আকস্মিক বন্যা সৃষ্টি হয় উজানের পাহাড়ি ঢলে। তাই সেখানকার বন্যা পূর্বাভাস বাংলাদেশকে আগাম জানানো ও ড্যামগুলো উন্মুক্ত করার আগে বাংলাদেশকে অবহিত করার কথাও ভারতকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। এসব বিষয়ে ভারত নীতিগতভাবে সম্মত হয়েছে।

এদিকে ২০২৬ সালে শেষ হবে গঙ্গা চুক্তির মেয়াদও। ফলে বাংলাদেশে পদ্মা নদীতে পানির প্রবাহ নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেওয়ার আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। এ নিয়ে ৩৮তম যৌথ নদী কমিশন বৈঠকে জোর আলোচনা করবে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়।

পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলছেন, সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানিবণ্টন নিয়েও আলোচনা হবে এবারের বৈঠকে।

ভারতের জলসম্পদ মন্ত্রণালয়ের এক শীর্ষ কর্মকর্তার কথায়, এই বৈঠক করার জন্য বাংলাদেশ বহু দিন ধরে অনুরোধ জানিয়ে এলেও নানা কারণে তা সম্ভব হচ্ছিল না। এখন শেখ হাসিনার সফরের ঠিক আগে যেভাবে তড়িঘড়ি জেআরসি আয়োজন করা হচ্ছে, তাতে ধরেই নেওয়া যায় এটা নেহায়েত কোনো রুটিন দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হবে না। বরং এই বৈঠক থেকে সদর্থক কিছু আউটকাম আশা করা হচ্ছে।

এক নজরে জেআরসি : জেআরসি বা জয়েন্ট রিভার্স কমিশন হলো, ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে পানির সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার লক্ষ্যে গঠিত সবচেয়ে শক্তিশালী এবং পুরোনো কাঠামো। এটি গঠন করা হয়েছিল ১৯৭২ সালে।

দুই দেশের মধ্য দিয়ে ৫৪টি অভিন্ন নদী প্রবাহিত হয়েছে। সেগুলোর পানি ভাগাভাগির ফর্মুলা থেকে শুরু করে ওয়াটার ম্যানেজমেন্ট- সবক্ষেত্রেই জেআরসি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। দিল্লিতে জেআরসির শেষ বৈঠক হয়েছিল ২০১০ সালের ১৯ মার্চ নরেন্দ্র মোদি ক্ষমতায় আসার চার বছর আগে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2009-2022 bddhaka.com  # গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রনালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত # এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Theme Developed BY ThemesBazar.Com