সোমবার, ২৭ মে ২০২৪, ০৯:০৪ পূর্বাহ্ন

টায়ার পুড়িয়ে নকল মবিল তৈরি করে বিক্রি, সিআইডির জালে ধরা

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১০৬৭ বার পঠিত

নিজস্ব সংবাদদাতা : বিভিন্ন গাড়ির পুরাতন টায়ার ও প্লাস্টিকের দানা পুড়িয়ে নকল মবিল তৈরি হত কারখানাটিতে। পরে দেশে প্রতিষ্ঠিত নামি কোম্পানির লেভেল লাগিয়ে বোতলজাত করে বিক্রি হতো। ঢাকার বাইরে দেশের বিভিন্ন জেলে ও উপজেলা শহরের গ্যারেজে এবং মহাসড়কের পাশে মবিল বিক্রির দোকানে কম দামে বিক্রি হত। আর এ নকল মবিল বিক্রি করে আয় হতো মোটা অঙ্কের টাকা।রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর আড়াবাড়ী এলাকার মামুন মিয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে নকল মবিল তৈরির কারখানাটির সন্ধান পায় পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। সিআইডির অভিযানে নকল মবিল তৈরির সরঞ্জামসহ ১৩ শ লিটার নকল মবিল জব্দ করাসহ এই চক্রের চার সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া নকল মবিল বিক্রির ৭ লাখ টাকাও জব্দ করা হয় অভিযানে।শুক্রবার (২৫ ডিসেম্বর) সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (ঢাকা মেট্রো-পূর্ব) কানিজ ফাতেমা এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।সিআইডি থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাজধানীর যাত্রবাড়ীর আড়াবাড়ী এলাকার মামুন মিয়ার বাড়িতে অভিযানে পরিচালনা করে নকল মবিল কারখানাটিতে মবিল তৈরি করা অবস্থায় চার জনকে গ্রেফতার করে। এ সময় নকল মবিল তৈরির সরঞ্জাম ও ১৩ শ লিটার নকল মবিল জব্দ করা হয়। এছাড়া নকল মবিল বিক্রির ৭ লাখ টাকাও জব্দ করা হয়।

টায়ার পুড়িয়ে মবিল তৈরি করে বিক্রি, সিআইডির জালে ধরা

গ্রেফতাররা সিআইডিকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানায় তারা দীর্ঘদিন ধরে মামুন মিয়ার এই নকল মবিল তৈরি কারখানায় কর্মচারী হিসাবে কাজ করে।সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার (ঢাকা মেট্রো-পূর্ব) কানিজ ফাতেমা বলেন, ‘মামুন মিয়ার একতলা একটি ভবনের দুইটি কক্ষে এই নকল মবিল তৈরির কারখানা। কারখানাটি বেশ বড়। এখানে বিভিন্ন ধরনের রাবার, পুরাতন টায়ার ও প্লাস্টিকের দানার সঙ্গে ব্যবহার করা পুড়া মবিল জ্বাল দিয়ে তারা এই নকল মবিল তৈরি করে আসছিল। নানা নামি কোম্পানির লেভেল বোতলে লাগিয়ে ঢাকার বাহিরে বিভিন্ন গ্যারেজে মবিল বিক্রি করে আসছিল। এছাড়া মহাসড়কের পাশে মবিল বিক্রির দোকানে স্বাভাবিক দামের তুলনায় কম দামেও এই মবিল বিক্রি হতো।’তিনি বলেন, ‘কারখানার মালিক মামুন মিয়াসহ এ চক্রের আরও কয়েক জন পলাতক রয়েছে। তাদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এ মুহূর্তে সঠিক তথ্য না থাকলেও প্রাথমিক ভাবে জানা যায়, তারা প্রতি মাসে মোটা অংকের টাকার নকল মবিল বিক্রি করে আসছিল।’গ্রেফতারদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও তিনি জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2009-2022 bddhaka.com  # গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রনালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত # এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Theme Developed BY ThemesBazar.Com