1. bddhaka2009bd@gmail.com : FARUQUE HOSSAIN : FARUQUE HOSSAIN
  2. bddhakanews24.com@gmail.com : admi2017 :
বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০১:৫৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
চট্টগ্রাম যমুনা লাইফের বরখাস্তকৃত ৩ কর্মকর্তার মধ্যে গ্রেপ্তার ২ পলাতক মিসির রায়হান কে খুজছে পুলিশ আলিসান বাড়িতে জায়গা হয়নি মা-বাবার, পুরাতন বাড়ি থেকেও তাড়িয়ে দিলেন প্রবাসী ছেলে পদ্মায় সর্বহারা মানুষের পাশে জারা মাহবুব, সুপেয় পানির ব্যবস্থা ও ত্রাণ বিতরণ রাজশাহীতে সাংবাদিকদের উপর হামলাকারী সকল আসামীদের গ্রেপ্তারের দাবি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় পবিত্র মাহে রবিউল আউয়াল মাসকে স্বাগত জানিয়ে র‌্যালি শিবগঞ্জে তথ্য অধিকার দিবস পালিত জয়পুরহাট আক্কেলপুরে ফেন্সিডিলসহ ছাত্রলীগ নেতা আটক যুবলীগ তাঁতীলীগের উদ্যোগে ও সাবেক সচিব জিল্লার রহমানের পৃষ্ঠপোষকতায় প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন চাঁপাইনবাবগঞ্জে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উদযাপন করলেন পৌর ছাত্রলীগ

দূরপাল্লার বাস খুলে দেওয়ার দাবিতে রাজধানীর বিভিন্ন বাস টার্মিনালে পরিবহন শ্রমিকদের অবস্থান

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১৪ মে, ২০২১
  • ১৩০ বার পঠিত

নিজস্ব সংবাদদাতা : দূরপাল্লার বাস খুলে দেওয়ার দাবিতে রাজধানীর বিভিন্ন বাস টার্মিনালে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতিসহ বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা। শুক্রবার (১৪ মে) সকালে ঈদের নামাজ পড়ে নেতাকর্মীরা এই অবস্থান কর্মসূচিতে অংশ নেন। এ সময় তারা দূরপাল্লার বাস খুলে দেওয়ার দাবি জানান।

গত ১৪ এপ্রিলেরর পর থেকে পরিবহন শ্রমিকরা দূরপাল্লার পরিবহন খুলে দেওয়াসহ তিন দফা দাবি জানিয়ে আসছিল। কিন্তু সে দাবি না মানায় তারা ঈদের দিন অবস্থান কর্মসূচির ঘোষণা দেয়। ঈদুল ফিতরের দিন পরিবহন শ্রমিকদের পূর্বঘোষিত কর্মসূচির আওতায় মহাখালী-গাবতলীতে ঈদের নামাজের পর অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে শ্রমিক নেতারা।

পরিবহন মালিকরা বলছেন, বিধিনিষেধে দূরপালল্লার পরিবহন ছাড়া দোকানপাটসহ সবকিছুই খোলা রয়েছে। গণপরিবহন বন্ধ থাকলেও সবাই ঠিকই বাইরে বের হচ্ছেন। কেনাকাটা করেছে এবং বাড়ি ফিরেছে। সংক্রামণও দিনদিন কমছে। তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনেই পরিবহন চালানোর দাবি জানিয়েছেন পরিবহন মালিক ও শ্রমিক নেতারা।

বাংলাদেশ পরিবহন মালিক সমিতির মহাসচিব ও ঢাকা জেলা পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের ৫০ বছরের ইতিহাসে ঈদের সময় আন্তঃজেলা বাস চলাচলে নিষেধাজ্ঞা- এমন দুর্বিষহ দিন কখনোই আসেনি। এ বছর করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে এটি করা হলেও কোনো লাভ হয়নি। কারণ, মানুষকে ঘরে আটকে রাখা যায়নি। মানুষ বিভিন্ন উপায়ে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে বাড়িতে গেছে, ঠেকানো যায়নি। আমরা সরকারকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম, করোনা সংক্রমণ যাতে না বাড়ে, সে বিষয়টিকে অধিকতর গুরুত্ব দিয়ে শতভাগ স্বাস্থ্যবিধি মেনে গাড়ি এক জেলা থেকে অন্য জেলায় যাবে। রাজধানী ঢাকা থেকেও একইভাবে গাড়িগুলো পরিচালনা করা হবে। সামাজিক দূরত্ব মানার বিষয়টিও নিশ্চিত করা হবে। কিন্তু সরকার আমাদের কথা শুনলো না। আমাদের আন্তঃজেলা গাড়িগুলো চালানোর অনুমতি দিলেন না।

তিনি আরও বলেন, সত্যি কথা বলতে লজ্জা নেই। আজ আমাদের অনেকের ঘরেই ভাত খাওয়ার চাল নেই, ঈদের নতুন কাপড় দূরে থাক, এটিই বাস্তবতা। গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলা করে টিকে থাকার জন্য সরকারের কাছে ৫ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা চেয়েছিলাম। সরকার দেয়নি। শ্রমিকদের জন্য ওএমএস’র চাল চেয়েছিলাম, তাও দেয়নি। সর্বশেষ বাস টার্মিনালে শ্রমিকদের কাছে বিক্রির জন্য ১০ টাকা কেজি দরের চালও চেয়েছিলাম। তাও দেয়নি।

এর আগে গত ৮ মে (শনিবার) পাঁচ দফা দাবিসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে দূরপাল্লার যাত্রী এবং পণ্যবাহী পরিবহন চালুর দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি, বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন ও বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন। দাবি না মানলে ঈদের দিন সারাদেশে বাস-ট্রাক স্ট্যান্ডে সকাল ১০টা থেকে বিক্ষোভ সমাবেশের হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শাজাহান খান লিখিত বক্তব্যে বলেন, ‘গত ৬ মে থেকে লকডাউন শিথিল রেখে মহানগর ও জেলার অভ্যন্তরে গণপরিবহন পরিচালনার সিদ্ধান্ত দিয়েছে সরকার। কিন্তু দূরপাল্লার গণপরিবহন বন্ধ রয়েছে। এতে মালিক ও শ্রমিকদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। অথচ বাস-মিনিবাস, সিএনজি চালিত অটোরিকশায় গাদাগাদি করে মানুষ যাতায়াত করছে। এতে করোনা আরও বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই স্বাস্থ্য বিধি মেনে দূরপাল্লার গণ এবং পণ্য পরিবহন চালু করে দিতে হবে।লিখিত বক্তব্যে পাঁচ দফা দাবি জানিয়েছেন শাজাহান খান। সেগুলো হলো- স্বাস্থ্যবিধি মেনে মোট আসনের অর্ধেক যাত্রী নিয়ে দূরপাল্লার পরিবহণসহ সব ধরনের গণপরিবহন এবং স্বাভাবিক মালামাল নিয়ে পণ্য পরিবহন চলাচলের সুযোগ দিতে হবে। লকডাউনের কারণে কর্মহীন সড়ক পরিবহন শ্রমিকদের আসন্ন ঈদের আগে আর্থিক অনুদান ও খাদ্য সহায়তা প্রদান করতে হবে। লকডাউনে গণপরিবহণ বন্ধ থাকায় মালিকদের যানবাহন মেরামত, কর্মচারী ও শ্রমিকের বেতন, ভাতা ও ঈদ বোনাস ইত্যাদি দেয়ার জন্য নামমাত্র সুদ ও সহজ শর্তে পাঁচ হাজার কোটি টাকা প্রণোদনা দিতে হবে।

সারাদেশে বাস ও ট্রাক টার্মিনালগুলোতে পরিবহন শ্রমিকদের জন্য আসন্ন ঈদের আগে ও পরে ১০ টাকায় ওএমএস-এর চাল বিক্রির ব্যবস্থা করতে হবে। কোভিড-১৯ এর কারণে গণপরিবহন ব্যবসায় অর্থ বিনিয়োগের বিপরীতে সব ব্যাংক ঋণ, আর্থিক প্রতিষ্ঠান ঋণ ও ব্যক্তি মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানের ঋণের সুদ মওকুফসহ কিস্তি আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্থগিত করতে হবে এবং ২ শতাংশ ডাউন পেমেন্ট নিয়ে ক্লাসিফাইড ঋণগুলো আনক্লাসিফাইড করতে হবে।

এছাড়া লকডাউনে বন্ধ থাকার সময় গাড়ির ট্যাক্স-টোকেন, রুট পারমিট ফি, আয়কর, ড্রাইভিং লাইসেন্স ফিসহ সব ধরনের ফি, কর ও জরিমানা মওকুফ করে ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ পর্যন্ত কাগজপত্র হালনাগাদ করার সুযোগ দিতে হবে।

এই ৫ দফা দাবি বাস্তবায়ন করা না হলে ঈদের নামাজ শেষে সারাদেশের মালিক ও শ্রমিকরা নিজ নিজ এলাকায় বাস ও ট্রাক টার্মিনালে সকাল ১০টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত অবস্থান কর্মসূচি পালন করবে বলেও জানান শাজাহান খান।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2009-2022 bddhaka.com  # গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রনালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত # এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Theme Developed BY RushdaSoft