সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৭:০৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ট্রাফিক আইন ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে: পুলিশ সুপার মো. ফয়েজ আহমেদ আম নিতে চায় রাশিয়া-চীন রাজশাহীতে গ্রামীণ ব্যাংকের মতবিনিময় বকেয়া ভূমি উন্নয়ন কর ৪৪৮ কোটি টাকা রাজশাহীতে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সম্মেলন রাজশাহী মহানগরীতে সড়ক দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ‘নো হেলমেট, নো ফুয়েল’ পাম্পগুলোতে ডিউটি পুলিশের রহনপুর রেলওয়ে শুল্ক স্টেশনের স্বার্থে সবাইকে এক হয়ে কাজ করতে হবে : জিয়াউর রহমান এমপি শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালন : ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার প্রত্যয় জেলা নেতৃবৃন্দের চাঁপাইনবাবগঞ্জেলিয়াকত হোসেন স্মরণে আলোচনা সততা সংঘের অসচ্ছল ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি দিচ্ছে দুদক

প্রয়োজনের তাগিদে বা শখের বশে সতর্কতার সহিত মোটরসাইকেল চালানোর কিছু উপায়

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ১৬ মে, ২০২১
  • ৫৪৬ বার পঠিত

নিউজ ডেস্ক :  প্রয়োজনের তাগিদে বা শখের বশে অনেকের মোটরসাইকেল কিনার ইচ্ছা জাগে। কারণ আমাদের দেশের পরিপ্রেক্ষিতে যাতায়াত বা ভ্রমনের জন্য মোটরসাইকেল খুবই ভালো যানবাহন।

যারা মোটর সাইকেল চালান তাদেরকে অবশ্যই সর্তকতার সাথে বাইক চালাতে হবে কারণ বর্তমানে মোটারসাইকেল বা বাইক দূর্ঘটনা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। আর এর প্রধান কারণ হচ্ছে বাইক চালকদের অসর্তকতা বা অদক্ষতা ।

এমনিতেই আমাদের দেশের রাস্তা অন্যান্য উন্নত বিশ্বের মত নয় তাই আমাদের দেশের বাইক চালকদের অবশ্যই উন্নত দেশগুলোর বাইকচালকদের তুলনায় একটু বেশিই সর্তকতার সহিত বাইক চালাতে হবে। বাইক দূর্ঘটনা এড়ানোর জন্য কিছু টিপস হলঃ

১/ বাইক চালানোর সময় অবশ্যই হেলমেট পরিধান করুন: আপনার শরীরের মধ্যে সবচেয়ে গুরুতর অঙ্গটি হলো আপনার মাথা। সাধারণত মাথায় একটু আঘাতেই অনেক বড় ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। মানুষের হাত পা ভাঙলেও মানুষ বেছে যেতে পারে তবে সেই মাথায় আঘাত গুরুতর হলে মানুষকে বাচানো সম্ভব হয় না। তাই বাইক চালানোর আগে অবশ্যই হেলমেট পরিধান করুন। আর এক্ষেত্রে কম দামি অথবা নিম্ন মানের হেলমেট পরিধান না করে ভাল মানের হেলমেট পরা উচিৎ।

২/ অতিরিক্ত গতিতে বাইক না চালানো : আমাদের মাঝে অনেকেই আছেন যারা কিনা অতিরিক্ত গতিতে বাইক চালাতে পছন্দ করে তবে এটা কিন্তু মোটেই উচিত নয়। কারণ বেশির ভাগ বাইক দূর্ঘটনাগুলো ঘটার পিছনে প্রধান কারণ থাকে অতিরিক্ত গতিতে বাইক চালানো।

৩/ সর্বদা ট্রাফিক আইন মেনে চলুন : আপনি যখন সঠিকভাবে ট্রাফিক আইন মেনে চলবেন তখন কিন্তু আপনাকে আর বাড়তি সর্তকভাবে বাইক চালাতে হবে না কারণ ট্রাফিক আইন এমনভাবেই তৈরি করা হয়েছে যে, যা কোন বাইকার সঠিকভাবে মেনে চললে তার এমনিতেই সর্বোচ্চ সর্তকতার সহিত বাইক চালানো হয়ে যাবে।

৪/ অবশ্যই লাইসেন্স করে বাইক চালান : আপনার যখন হাতে মোটর সাইকেল চালানোর লাইসেন্স থাকবে তখন আপনার বাইক চালানোর সঠিক কৌশল ও রাস্তাঘাটের সব আইন গুলো জানা থাকবে যার ফলে আপনি সঠিকভাবে বাইক চালাতে পারবেন । এতে দূর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা অনেক কমে যাবে।

৫/ কমপক্ষে ২-৩মাস বাইক চালানোর পর মহাসড়কে বাইক চালাতে হবে : আমরা অনেকেই আছি যারা কিনা কয়েকদিন বাইক চালানো চর্চা করেই মাহাসড়কগুলোতে বাইক চালানোর জন্য উঠে পরি যেটা মোটেও উচিত নয় কারণ নতুন অবস্থায় আপনি মহাসড়কের অনেক কিছুই জানবেন না। যার ফলে দূর্ঘটনা ঘটতে পারে।

আপনারা যদি এই বিষয় গুলো খেয়াল রেখে ও সর্তকতা সহিক বাইক চালান তাহলে আশা করি বাইক দূর্ঘটনা অনেকাংশে কমে যাবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2009-2022 bddhaka.com  # গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রনালয়ের বিধি মোতাবেক নিবন্ধনের জন্য আবেদিত # এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Theme Developed BY ThemesBazar.Com